ভাঙনের ঝুঁকিতে থাকা ১০ জেলায় বাঁধ নির্মাণ অব্যাহত

0

আসন্ন বর্ষার প্রস্তুতিতে সারাদেশে নদী ভাঙনে ঝুঁকিপূর্ণ অন্তত ১০ জেলায় বাঁধ নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়। সোমবার (১১ মে) পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নড়িয়া, চাঁদপুর, টাঙ্গাইল, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, লক্ষীপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, নড়াইল এবং সিরাজগঞ্জের চিহ্নিত এলাকায় বাঁধ নির্মাণ ও বাঁধ পুনঃরক্ষার কাজ চলমান রয়েছে।

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীমকে উদ্ধৃত করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বর্ষা সমাগত হওয়ার আগেই ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করে তীর রক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। এবার কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ যাতে দেশের বা মানুষের ক্ষতি না করতে পারে সে লক্ষ্যে বিদ্যমান করোনা সঙ্কটেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ অব্যাহত রয়েছে। মন্ত্রণালয় ও বাপাউবো (বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সব কাজের সমন্বয় করছে। এছাড়া বাপাউবো মহাপরিচালকসহ একাধিক কর্মকর্তা বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার কাজ স্বশরীরে তদারকি করছেন। গত ২৯ এপ্রিল উপমন্ত্রী নিজেই পদ্মার তীর রক্ষার কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন।

হাওর অঞ্চলের প্রস্তুতির কথা উল্লেখ করে উপমন্ত্রী বলেন, হাওর এলাকায় পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আগাম প্রস্তুতির জন্য এবার ফসল রক্ষা হয়েছে। এছাড়া অতীতের ন্যায় বন্যা বা নদী ভাঙণে মানুষের জান-মালের যাতে কোনো ক্ষতি না হয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও নেতৃত্বে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে।

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে আরও জানানো হয়, ভাঙনপ্রবণ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করতে প্রধান প্রকৌশলী (বাপাউবো) ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীদের সমন্বয়ে টিম গঠন করা হয়। এর আগে গত ১৯ এপ্রিল বর্ষায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় করণীয় সম্পর্কে মন্ত্রণালয়ে আলোচনা সভা করেছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়। এর ধারাবাহিকতায় ৩ মে পুনরায় সভা অনুষ্ঠিত হয় যেখানে চলমান কাজ ত্বরান্বিত করতে আলোচনা হয়। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার কাজের পাশাপাশি সারাদেশে তীর রক্ষার অধিকাংশ প্রকল্পের কাজ অব্যাহত আছে।

মতামত