চুরির অপবাদ দিয়ে কিশোরকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন

0
গাইবান্ধা: চুরির অপবাদ দিয়ে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে ঘুমন্ত এক কিশোরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে দড়ি দিয়ে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুঁলিয়ে নির্যাতনের করা হয়েছে। ঘটনাটি ইতোমধ্যে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।সোমবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, ভিডিও দেখে ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। ইতোমধ্যে নির্যাতনের শিকার রাফিকুলের ভাই লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্তসহ অভিযুক্তদের গ্রেফতারে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।এরআগে, শনিবার (১১ জানুয়ারি) সকালে সুন্দরগঞ্জের ধুমাইটারী গ্রামে নির্মম এই নির্যাতনের ঘটনার ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির কাছ থেকে ভিডিও সংগ্রহ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন নির্যাতনের শিকার রাফিকুলের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম।নির্যাতনের শিকার কিশোর রাফিকুল সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সুন্দরগঞ্জের ধুমাইটারী গ্রামের দরিদ্র পরিবারের ১৩ বছরের কিশোর রাফিকুল স্থানীয় ইটভাটায় শ্রমিকের কাজ করে।নির্যাতিত কিশোরের স্বজনদের অভিযোগ, প্রতিবেশি ফজলু, ইয়াজল ও নাজমুলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে পারবারিক বিরোধ চলছিল। গরু চুরির মিথ্যা অভিযোগে শুক্রবার রাতে ঘুম থেকে রাফিকুলকে ডেকে নিয়ে মারধর করে। পরে ছেড়ে দিতে চেয়ে ১০ হাজার টাকা দাবি করলে তাৎক্ষণিক তিন হাজার টাকা দেয় পরিবারের লোকজন। তাতে সন্তুষ্ট না হয়ে রাতভর আটক রেখে রাফিকুলকে মারধর করা হয়। পরেরদিন শনিবার সকালে গ্রামের শতশত নারী-পুরুষের সামনে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুলিয়ে রাফিকুলকে লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি পেটাতে থাকে ফজলু, ইয়াজল ও নামজুল।কিশোর রাফিকুলের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, গ্রামের সবার সামনে রাফিকুলের ওপর নির্মম নির্যাতন চালালেও কেউ তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি। নির্যাতনের শিকার রাফিকুল এক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার পর নির্যাতনকারী ভয়ভীতি ও হুমকি দেওয়ায় মুখ খুলতে এবং অভিযোগ করতে সাহস পাননি। পরে মোবাইলে ধারণ করা নির্যাতনের ঘটনার ভিডিও দেখে বিষয়টি পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানায়।এ বিষয়ে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. বিশ্বেশ্বর চন্দ্র বর্মণ বলেন, মারধরের শিকার কিশোরের দুই পা-হাত ও শরীরের বিভিন্ন জায়গা জখম হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।

মতামত